ফেসবুক আমাদের জীবনের বড় একটা অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা ফেসবুক ছাড়া প্রায় নিজেকে অচল মনে করি। সব কিছু আমরা আজকাল ফেসবুকে না বললে মনে হয় আমাদের বলার আর জায়গাই নেই। সব আনন্দ,দুঃখ ও অন্যান্য যা যা আছে। যেহেতু ফেসবুক ছাড়তে পারবো না সেহেতু এটাকে নিয়ে একটা আলোচনায় আসা দরকার।
 

যেভাবে ফেসবুক আমাদের নষ্ট করছে :

 
লাইক ও কমেন্ট : আমরা লাইক কমেন্ট এ ডুবে আছি। কে কত লাইক,কমেন্ট বা শেয়ার পেলাম সে হিসাব আমাদের খুব করে জানা। সবাই এই হিসাব এ নিমঘ্ন। লাইক কমেন্ট পাওয়ার জন্য যত যা করা যায় তা আমরা করি। আর এতে আমাদের সাময়িক একটা আনন্দ কাজ করে। এই লাইক কমেন্ট এর পেছনে সময় নষ্ট হয়। এই সময়টা নিজের জীবনের পেছনে ব্যয় করলে ভালো ফলাফল আসতো। এই সময় নিজের স্কিল বৃদ্বি পায় এমন কাজ করা যেতে পারে।
 
চ্যাট করা : কারণে অকারণে চ্যাট করা খারাপ জিনিস বটে। এক শ্রেণীর ফেসবুক ব্যবহারকারী আছেন যারা শুধু শুধু চ্যাট এ কথা বলবে। মেয়েদের অনলাইন এ পেলে তো কথাই নেই। এতে যেমন সময় নষ্টের সাথে সাথে নিজের ব্যক্তিত্ব ও নষ্ট হয়।
 
নিউজফীড ঘুরাঘুরি : স্ক্রল করতে করতে যতক্ষন নিচে যাওয়া যায় ততক্ষন আমরা নিউজফীডকে ছাড় দেই না। এতে সময় নষ্ট হয়।
 

যেভাবে ফেসবুক আমাদের উপকারে আসতে পারে :

 
আনফ্রেন্ড করা : আপনার উপকারে আসে না এমন ফেসবুক ব্যাবহারকারী আপনার সাথে অ্যাড করার দরকার কি ? আর যদি করে ফেলেন তবে আনফ্রেন্ড করেন। এইরকম ব্যাবহারকারী তাদের দৈনন্দিন জীবনযাপন ফেসবুকে আপলোড করে আর এতে আমাদের লাভ কী ? এদের কারণে শুধু শুধু আমাদের নিউজফীডটা বড় হয়ে যায়। আর বড় নিউজফীড সময় নষ্টের মূল। ভাই বন্ধু বা নিকটবর্তী কাউকে আবার আনফ্রেন্ড করো না। যাদের সাথে ইমোশনাল এটাচমেন্ট আছে তাদেরকে কোনোভাবে জীবন থেকে সরিয়ে দিও না। এরাই সব।
 
আনফলো করা : কিছু ব্যাবহারকারী আছেন যাদেরকে আনফ্রেন্ড করলে তারা কষ্ট পাবে। খুব দূরের বা কাছেরও না আবার নিজের জন্য উপকারীও না। তাদেরকে আনফলো করা যায়। আনফলো করলে আনফ্রেন্ড করা হয়না কিন্ত তাদের আপডেট আপনার নিউজফীড এ আসবে না। আনফলো করলে তারা যেমন কষ্ট পেলো না আবার তোমার নিউজফীড বড় হলো না।
 
ফলো করা : কিছু ফেসবুক ব্যবহারকারী আছেন যারা জীবন ও সমাজ পরিবর্তনকারী কথা বার্থা বলেন। ইতিবাচক একটা প্রভাব ফেলেন যাদেরকে আমরা ফলো করতে পারি। আমাদের এতে অনেক কিছু শেখা হয়। Following এ ক্লিক করলে See First, Default,Unfollow নামে যে অপসনগুলো বের হয়ে আসবে। তখন ওই ব্যবহারকারীকে See First করে রাখেন তাহলে উনার কোনো কিছুই বাদ যাবে না। সব কিছুই আপনার নিউজফীড চলে আসবে। টিক একইভাবে যে যে ফেসবুক পেজগুলো আছে যাদের পোস্ট আপনার কাজে আসে তাদেরকেও ফলো করেন।
 
ব্যবসা করতে বা লাভজনক কাজে : ফেসবুক অনেক বড় একটা প্লাটফর্ম। এখানে যেহেতু ব্যাবহারকারীর সংখ্যা অনেক সেহেতু এই ব্যাবহারকারীদেরকে আপনার কাস্টমার বা টার্গেটেড অডিয়েন্স এ পরিণত করতে পারেন। আপনার ব্যবসা বা প্রতিষ্টানের নাম ফেসবুক পেজ খুলে সেটা প্রমোট করেন তবে আপনার কাস্টমার বা টার্গেটেড অডিয়েন্স বেড়ে যাবে।
 
সময় বন্টন : সময় বন্টন করে জীবনের সব কিছুই করা উত্তম। ফেসবুক যেহেতু অনেক বড় একটা অংশ এবং এর ভালো ও খারাপ দিক আছে সেহেতু এটাকে ব্যবহার করতে গিয়ে সময় নির্ধারণ করা শ্রেয়। কখন ফেসবুক এ লগ ইন করবো এবং কতোটুকু সময় ব্যয় করবো তা অবশ্যই নির্ধারণ করে নিতে হবে।
Advertisements